Posts tagged ‘ভারতনীতি’

জানুয়ারি 13, 2012

পদক নিয়ে করিডোর দিলেন


 অতীতে পদক না দেয়ার কারণে সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে

রাস্তাঘাটের অবস্থা যাই হওক না কেন আমাকে যতটা পদক আর ডকটর দেয়া হবে ততটা করিডোর আপনাদের জন্য করে দেয়া হবে বলে উপরাষ্টপতি কে কানে কেনে বলেছেন বাংলাদেশের প্রধান উজির শেখ হাসিনা।

উজিরে আজম শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারতের জনগণের ভাগ্য প্রতিবেশী দেশ দুটির পারস্পরিক বহুমুখী সম্পর্কের মধ্যে নিহিত রয়েছে। উজিরে আজম আজ বৃহস্পতিবার তাঁর সম্মানে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারের দেওয়া এক নাগরিক সংবর্ধনায় এ কথা বলেন।
উজিরে আজম বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনক হলেও বলতে হচ্ছে, পদক না দেয়ার কারণে অতীতে বারবার এই সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’ তিনি বলেন, তাঁর সরকার ও জনগণ ভারতের সঙ্গে পারস্পরিক কল্যাণকর সম্পর্ক স্থাপনে অঙ্গীকারবদ্ধ।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘অতীতকে পিছনে ফেলে আমরা যদি একসঙ্গে কাজ করি, তাহলে অবশ্যই দুই দেশের জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে সামনে এগিয়ে যেতে পারব বলে আমি বিশ্বাস করি।’ ত্রিপুরার জনগণ আগামী প্রজন্মের জন্য একটি সুন্দর ভবিষ্যত্ রচনায় এই উদ্যোগকে সমর্থন করবে বলেই বিশ্বাস ব্যক্ত করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইতিহাস, ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি, অর্থনীতি, বাণিজ্যসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে আবহমান কাল থেকে বাংলাদেশ ও ত্রিপুরার মধ্যে গভীর সম্পর্ক বিদ্যমান। ‘১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জনগণকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে ত্রিপুরাবাসী এই বন্ধনকে আরও সুদৃঢ় করেছে।’
শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের জনগণের ভবিষ্যত্ও একই সূত্রে গাঁথা। তিনি বলেন, ‘উভয় দেশের জনগণের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও অগ্রগতির দিকে নজর দিতে হবে এবং আমাদের সম্ভাবনাগুলোকে কাজে লাগানোর জন্য দুই দেশের জনগণের মধ্যে বিদ্যমান সম্পর্ক আরও জোরদার করতে হবে।’
ত্রিপুরার ব্যবসায়ী ও শিল্পমালিকদের বাংলাদেশ সফরের আহ্বান জানিয়ে উজিরে আজম বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগের চমত্কার পরিবেশ বিরাজ করছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত উভয়ই দুই দেশের জনগণের মধ্যে মানবিক সম্পর্ক স্থাপনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করছে।

read more »

Advertisements