মদপান করে মারা যাওয়া শিক্ষার্থীর নামে স্মৃতিফলক


কুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতির স্মৃতিফলক নির্মাণের প্রতিবাদ শিক্ষকদের

স্মৃতিফলক স্থাপন করায় খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের(কুয়েট) শিক্ষকরা আন্দোলন শুরু করেছেন। শিক্ষকরা মনে করছেন কোন রকম অনুমতি ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কারও প্রতিকৃতি স্থাপন বেআইনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার উআলোকে  জানান,  গত বছরের ২২ নভেম্বর কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারায় এক বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে অতিরিক্ত মদপান ও রাতে পুটোলাধুলা  করে একেএম আহসান উল্লাহ ভূইয়া মেহেদী মারা যান। তিনি কুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের  ছাত্র ও কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন।  মেহেদীসহ ২ জন মারা যায়। মেহেদীর সতীর্থরা ক্যাম্পাসে একটি স্মৃতিফলক নির্মাণ করে।

শিক্ষকদের সেই আন্দোলনের দ্বিতীয় দিনে খুলনা সিটি মেয়র ও আওয়ামী লীগ খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি তালুকদার আবদুল খালেক কুয়েট ক্যাম্পাসে নির্মিত অতিরিক্ত মদ্যপান করে মৃত্যুবরণকারী কুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির স্মৃতিফলক আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করেন।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: শাহাজান বাংলানিউজকে জানান, কর্তৃপক্ষের কোন অনুমোদন ছাড়া প্রতিকৃতিটি স্থাপন করা হয়েছে।  কোন ব্যক্তির নামে প্রতিকৃতি স্থাপন করতে নিয়মানুযায়ী সিন্ডিকেট সভা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের অনুমোদন নিতে হয়। এ ক্ষেত্রে তা মানা হয়নি। তাই আমরা এর প্রতিবাদ করছি।

Advertisements
ট্যাগ সমুহঃ

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: